রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৬ ১৪২৬   ২২ মুহররম ১৪৪১

ত্বকের যত্নে ফেসিয়ালের গুরুত্ব

নিউজ ডেস্ক

দৈনিক যশোর

প্রকাশিত : ০৩:৫৫ পিএম, ২৫ মার্চ ২০১৯ সোমবার

মুখের সৌন্দর্যসহ ত্বকের যৌলস নিয়ে প্রায় সব মানুষই চিন্তিত থাকেন। আর ত্বকের যত্নে ফেসিয়াল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। অনেকেই না বুঝে ফেসিয়াল করে থাকেন। অধিকাংশ সময় দেখা যায়, প্রায় মানুষের মুখে ব্রণের সমস্যা থাকে। ত্বকে অনেক দিন ধরে ময়লা জমে থাকলে ব্রণের উৎপত্তি হয়। আর ফেসিয়ালের মাধ্যমে ত্বক থেকে ময়লা বের করে নেয়া হয়। ফেসিয়াল করার সময় ম্যাসাজ ও স্টিম করা হয়। যেগুলো ময়লা বের করতে সাহায্য করে থাকে।

অনেকেই ফেসিয়াল করতে গেলে স্টিম নিয়ে থাকেন। স্টিমের ফলে লোমকূপের ছিদ্র বড় হয়ে যায়। ফলে ময়লা অনায়েসেই বেরিয়ে আসে। প্রতিদিন মুখ ফেস ওয়াশ দিয়ে ধুলেও মুখের ভেতরে একটা ময়লা থাকে। যা ফেসিয়াল ছাড়া বের করা সম্ভব নয়। যার জন্য মুখের ত্বকে ব্রণ হয়ে থাকে। একটা বয়সের পর থেকে নিয়ম করে ফেসিয়াল করলে এসব সমস্যা অনেকটা দূর হয়ে যাবে। ফেসিয়াল করলে মুখের ব্রণের সমস্যা দূর হবে সেই সঙ্গে ত্বকের উজ্জ্বলতাও অনেক গুণ বেড়ে যাবে। 
 
ময়েশ্চারাইজার: ফেসিয়াল শুধু মুখ পরিষ্কার করে বা মুখ থেকে ব্রণের সমস্যা দূর করে তা কিন্তু নয়। ফেসিয়াল মুখ পরিষ্কারের পাশাপাশি মুখ থেকে তেলতেলে ভাব দূর করতে সাহায্য করে। শুধু তাই নয়, ফেসিয়ালের পর মুখে মশ্চারাইজার লাগিয়ে দেয়া হয়। ময়েশ্চারাইজার ত্বকের জন্য খুবই উপকারি। নিয়মিত ফেসিয়াল করলে ত্বকে নতুন কোষ জন্মানো শুরু করে ফলে বলিরেখার হাত থেকে ত্বক মুক্তি পায়। 

স্কিন টেস্ট: ফেসিয়ালের বিভিন্ন ধরণ রয়েছে। ত্বক অনুযাই ফেসিয়াল করা খুবই ভালো। ত্বকের ধরণ অনুযাই ফেসিয়াল করার জন্য একজন অভিজ্ঞ বিউটিশিয়ানের পরামর্শ নিলে ভালো হয়। সব থেকে ভালো উপায় হলো, স্কিন টেস্ট করে ফেসিয়াল করা। তবে তা ত্বকের জন্য খুবই উপকারি। 

সুচ: অনেক সময় ফেসিয়াল করতে গেলে সুচ ব্যবহার করা হয়। এটি খুবিই ক্ষতিকর। কারণ এ সুচ ব্যবহারের উপযুক্ত না হলে ত্বকের নানা রকম ক্ষতি হতে পারে। আর এর ফলে স্কিনের নিচে মারাত্মক রোগের সৃষ্টি হয়। ত্বকের ধরণ অনুযায়ী সাধারণ ফেসিয়াল স্কিনের জন্য উপকারি। আবার অতিরিক্ত মাত্রায় ফেসিয়াল করা যাবে না। সংবেদনশীল ত্বকে অল্পতেই নানা রকম রোগ ছড়াতে পারে। সাধারণত মাসে দু’বার ফেসিয়াল করা ত্বকের জন্য ভালো।  আর ফেসিয়াল শুরু করার আগে অবশ্যই ভালো একজন বিউটিশিয়ানের পরামর্শ নিতে হবে। চব্বিশ বা পঁচিশ বছরের আগে ফেসিয়াল না করাই ভালো। ফেসিয়ালের ক্ষেত্রে সব সময় এক ধরণের ফেসিয়াল করা উচিত। কোনো অনুষ্ঠান উপলক্ষে হঠাৎ করেই ফেসিয়াল করলে ত্বকের ক্ষতি হতে পারে।