বৃহস্পতিবার   ২৪ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৮ ১৪২৬   ২৪ সফর ১৪৪১

১০৮

বেবি অয়েলের ১১ টি ভিন্ন ব্যবহার

প্রকাশিত: ১৩ মার্চ ২০১৯  

বাচ্চাদের ত্বক বড়দের তুলনায় অনেক নরম, কমল ও নাজুক হয়ে থাকে। তাই বাচ্চাদের প্রসাধনীগুলো হয়ে থাকে ক্ষার মুক্ত ও কমল। তবে বেবি অয়েল কি শুধু বাচ্চারাই ব্যবহার করতে পারবে? মনে হয় না, কারণ বেবি অয়েল দিয়ে এমন অনেক কাজ আছে যা খুব সহজেই করা যায়। আর যেহেতু বেবি অয়েল বেবিদের জন্য তৈরি করা হয় এতে কোন খারাপ কেমিক্যাল থাকে না। নানা ধরণের ভিটামিন সমৃদ্ধ উপাদান দিয়েই বেবি অয়েল তৈরি করা হয়। তাই কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হওয়ার সম্ভবনা থাকে না।

মেক-আপ পরিষ্কার করুন: মেক-আপ পরিষ্কার করা খুব প্রয়োজন। আর তাই বেবি অয়েল দিয়েই এই কাজ আপনি সহজেই সারতে পারেন। তুলোর টুকরোয় সামান্য বেবি অয়েল নিয়ে ত্বকে ম্যাসেজ করে মেক-আপ পরিষ্কার করে ফেলুন।

ত্বকের জন্য ভালো ময়শ্চারাইজার: বেবি অয়েল কিন্তু শুধু বেবিদের জন্যই ভালো নয়। আপনি নিজেও চাইলে ত্বক ময়শ্চার করতে ব্যবহার করতে পারেন বেবি অয়েল। তাছাড়া আপনার পায়ের গোড়ালি যদি ফেটে গিয়ে থাকে সেখানে সামান্য বেবি অয়েল ম্যাসেজ করে নিন।

মেক-আপ ব্রাশ পরিষ্কার করা: মেক-আপ করার ব্রাশগুলো থেকে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রামন ঘটতে পারে খুব সহজেই। তাই মেক-আপ করার ব্রাশগুলো কিছুদিন পর পর পরিষ্কার করা উচিৎ। আর বেবি অয়েল দিয়েই ব্রাশ পরিষ্কার করতে পারেন খুব সহজেই। একটি পাত্রে সামান্য পরিমাণে বেবি অয়েল নিয়ে নিন তারপর ব্রাশের চারপাশে অয়েল লাগিয়ে নিন। এরপর গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন এবং শুকাতে দিন। মনে রাখবেন প্রতি ৩ থাকে ৪ সপ্তাহ পর পর মেক-আপ ব্রাশ পরিষ্কার করবেন।

নখের যত্নে বেবি অয়েল: অনেকের নখই কিছুটা ভঙুর প্রকৃতির হয়ে থাকে। তাই নখ ভালো রাখতে বেবি অয়েল ব্যবহার করুন। হাত ও পায়ের নখে সামান্য বেবি অয়েল নিয়ে ম্যাসেজ করুন।

পায়ের যত্নেও বেবি অয়েল: পায়ের লোম পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন বেবি অয়েল। এটি শেভিং ক্রিম হিসেবে খুব ভালো কাজ করে। দেখবেন বেবি অয়েলের ব্যবহারে পাও খুব মসৃণ হবে।

স্ক্রাবার হিসেবে ব্যবহার করুন বেবি অয়েল: বেবি অয়েলের সাথে সামান্য লবণ মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করুন। গোসলের আগে, হাত,পা, মুখ ঠোঁট এই স্ক্রাব দিয়ে ম্যাসেজ করে নিন, এতে করে দেহের মৃত কোষগুলো পরিষ্কার হয়ে যাবে।

চুলের যত্নেও বেবি অয়েল: যদি আপনার চুল খুব শুষ্ক, এলোমেলো হয়ে থাকে কোনো সমস্যা নেই বেবি অয়েল আপনাকে সাহায্য করবে। হাতে সামান্য বেবি অয়েল নিয়ে চুলে আলতো করে লাগিয়ে নিন। দেখবেন চুল নরম ও উজ্জ্বল হবে।

চুলের জেল হিসেবে বেবি অয়েল: চুলের জন্য অনেকেই জেল ব্যবহার করে থাকেন বিশেষ করে পুরুষেরা। কিন্তু চুলের জেলগুলোতে থাকে অনেক ধরণের কেমিক্যাল যা চুলের জন্যও ক্ষতিকর। তাই জেল হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন বেবি অয়েল।

অস্থায়ী ট্যাটু পরিষ্কার: আজকাল অনেকেই অস্থায়ী ট্যাটু করে থাকেন দেহের বিভিন্ন অংশে। আর এই ট্যাটুর রঙ পরিষ্কার করতে ব্যবহার করতে পারেন বেবি অয়েল।

জুয়েলারি পরিষ্কারে বেবি অয়েল: আপনার জুয়েলারিও পরিষ্কার করতে পারেন বেবি অয়েল দিয়ে। এক টুকরো তুলোয় খুব সামান্য বেবি অয়েল লাগিয়ে নিন তারপর ধীরে ধীরে পরিষ্কার করুন। তাছাড়া চেন পেঁচিয়ে গেলেও সেখানে সামান্য বেবি অয়েল দিয়ে দিন সহজেই প্যাঁচ খুলে আসবে।

লেদারের চাকচিক্য বাড়াতে বেবি অয়েল: লেদারের যেকোনো জিনিস ব্যাগ, জুতো, জ্যাকেট ইত্যাদি চকচিক্য বাড়াতে ব্যবহার করতে পারেন বেবি অয়েল। একটি তুলোর টুকরোতে অয়েল মিশিয়ে তা আপানার লেদারের জিনিসে হালকা করে ম্যাসেজ করে নিন।

দৈনিক যশোর
দৈনিক যশোর