বৃহস্পতিবার   ২৪ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৮ ১৪২৬   ২৪ সফর ১৪৪১

১৯৩

প্রেম করেছি, প্রেমে পড়িনি

প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর ২০১৮  

এবার পাঠকদের মুখোমুখি হয়েছেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় মুখ, মেহ্জাবীন চৌধুরী। হুবহু সেই প্রশ্ন ও উত্তর পাঠকদের জন্য দেওয়া হলো


শৈশবের কোন স্মৃতি আজও তাড়িয়ে বেড়ায়?

জন্মের পর থেকেই পরিবারের সঙ্গে আমি দুবাইয়ে বসবাস করতাম। আমার বয়স তখন ১২ বা ১৩ হবে, হঠাৎ করেই পরিবার থেকে সিদ্ধান্ত হলো আমরা বাংলাদেশে স্থায়ী হব। চলে এলাম। কত দিন হয়ে গেল! আজও দুবাইয়ের সেই ছোটবেলার বন্ধু, স্কুলের বন্ধুদের স্মৃতি খুব মনে পড়ে।

আপনার সবচেয়ে প্রিয় মানুষ কে?

পরিবারই আমার কাছে প্রিয়। তাদের জন্য আজ এভাবে এগিয়ে যাওয়ার সাহস পেয়েছি। সেই সঙ্গে পরিবারকেও হয়তো কিছু দিতে পেরেছি। তবে যদি একজনের নাম আলাদা করে বলতে হয়, তাহলে বলব মায়ের নাম।

আপনি কি ডায়েট করছেন? পছন্দের খাবার কী?

কী আর বলি, আগে তো করতাম না। এখন চেষ্টা করি, সব সময় পারি না। সকাল–দুপুর ডায়েট অনুযায়ী খাওয়ার চেষ্টা করি। কিন্তু রাতে গিয়ে ওই যা তাই-ই হয়ে যায় (হা হা হা...)। ওহ্! পছন্দের খাবার বিরিয়ানি।

এত ভালো কাঁদেন কী করে?

এটা তো বলা মুশকিল। চরিত্রানুযায়ীই অভিনয় করি। কাঁদার দৃশ্য থাকলে কাঁদি। আমার মনে হয়, আমি যখন কাঁদার অভিনয় করি, তখন দর্শকেরা চরিত্রের সঙ্গে মিশে যান। এ কারণেই কাঁদার দৃশ্যটা দর্শকের কাছে ভালো লাগে। কী, ঠিক বলছি না?

আপনাকে যত দেখি, ততই ভালো লাগে। আপনি এত কিউট কেন?

হা হা হা...এটা আবার কী ধরনের প্রশ্ন? তবে ভক্তকে আমার ধন্যবাদ। আমার কাজ দেখেই হয়তো তাঁর এই ভালো লাগা। আর কারও ভালো লাগার মানুষ অসুন্দর হলেও তার কাছে সুন্দর লাগে।

কখনো কারও প্রেমে পড়েছেন? কার ওপর?

প্রেম করেছি, প্রেমে পড়িনি...। সবার জীবনেই কিন্তু প্রেম আসে, সবাই প্রেম করে। তবে আমি কার সঙ্গে প্রেম করেছি, এখন তো তা বলব না। সময় হলে আপনারা জেনে যাবেন।

আপনার সঙ্গে কখনো দেখা করার বা আপনার বিয়ের দাওয়াত পাওয়ার সুযোগ মিলবে কি না?

দেখা করা যায়। প্রতিদিনই শুটিংয়ে থাকি। কিংবা বিভিন্ন স্টেজ শোতে অংশ নিই। আমার যাঁরা ভক্ত, তাঁরা যদি সত্যিই আমাকে অনুসরণ করেন, তাহলে আমার প্রতিদিনের অবস্থান জানতে পারবেন। ফলে সহজেই দেখা করা সম্ভব। আর বিয়ে কবে করব, কীভাবে হবে, সেটা তো এখনো জানি না। ফলে যখন হবে, তখন বিষয়টি দেখা যাবে।

দৈনিক যশোর
দৈনিক যশোর
এই বিভাগের আরো খবর