শনিবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৬ ১৪২৬   ২১ মুহররম ১৪৪১

১০৪

ত্বকের ধরন বুঝে খাদ্যাভ্যাস! 

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৫ মার্চ ২০১৯  

সঠিক খাদ্যাভ্যাস একজন মানুষকে সুস্থ ও সুন্দর রাখে। শরীর ও ত্বকে খাবারের প্রভাব অধিক মাত্রায় পড়ে থাকে। তাই ত্বকের ধরন বুঝে খাবার গ্রহণ করলে শরীরের অনেক সমস্যা থেকেই দূরে থাকা যায়। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক ত্বক বুঝে যে খাবারগুলো গ্রহণ করবেন-

তৈলাক্ত ত্বক
ব্রণ ও অন্যান্য সমস্যা বেশি দেখা দেয় এ ধরনের ত্বকে। তৈলাক্ত বা অসামঞ্জস্য ত্বকে, ব্রণ বা লোমকূপ বন্ধ হওয়ার প্রধান কারণ হতে পারে প্রক্রিয়াজাত, নোনতা ও উচ্চ কার্বোহাইড্রেইট সমৃদ্ধ খাবার। দুধ, পনির, মাখন ও গরুর দুধের দই কম খেলে ত্বকে বাড়তি তেল উৎপাদন বন্ধ হয়।তাই বলা যায় দুগ্ধজাত খাবারও তৈলাক্ত ত্বকের কারণ হতে পারে। অতএব, তৈলাক্ত ত্বকের জন্য কাঠবাদাম, নারকেল, মিষ্টি আলু, ব্লুবেরি, ব্ল্যাকবেরি এবং গ্রিন টি খাওয়ার অভ্যাস গড়ুন ।  
 
শুষ্ক ত্বক 
ওমেগা-থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড খাবারে যুক্ত করা উচিত শুষ্ক ত্বকের জন্য। এর সঙ্গে দিনে কমপক্ষে ৩ থেকে ৪ লিটার পানি পান করুন। শুষ্ক ত্বকে পুষ্টি যোগাতে চাই ভেতর থেকে আর্দ্রতা। এই দুই উপাদান দীর্ঘক্ষণ ত্বক আর্দ্র রাখতে সাহায্য করে। অতএব, শুষ্ক ত্বকের জন্য খাবারে ডিম, অ্যাভাকাডো, কাঠবাদাম, কাজুবাদাম, জলপাই ও নারিকেল তেল ইত্যাদি রাখা ভালো। 

মিশ্র ত্বক
মিশ্র ত্বকের জন্য খাবারের তালিকায় ৯৫ শতাংশ ডালের প্রোটিন, তাজা সবজি, কপি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ ফল রাখুন। যতটা সম্ভব অল্প কার্বোহাইড্রেইট-জাতীয় খাবার খান। উচ্চ প্রোটিন সমৃদ্ধ লাল-চাল বা ভুট্টা খেতে পারেন। এবং ত্বক সুন্দর রাখতে বেশি বেশি পানি পান করুন। 

অতএব, মিশ্র ত্বকের জন্য ব্রকলি, বাঁধাকপি, পালংশাক, গাজর, মুরগি, ডিম, জলপাইয়ের তেল, লাল-চাল, বাদাম ইত্যাদি খাওয়া ভালো।

দৈনিক যশোর
দৈনিক যশোর