রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৬ ১৪২৬   ২২ মুহররম ১৪৪১

৮৭

খালেদা অসুস্থতা নিয়ে বিএনপি’র রাজনীতি: হাছান মাহমুদ

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮ মার্চ ২০১৯  

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্য মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ অভিযোগ করে বলেছেন, বিএনপি নেতারা কয়েকদিন পর পর বলেন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দরকার। আবার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসা দিলে হবে না। আমাদের দলের সাধারণ সম্পাদক অসুস্থ হওয়ার পর তাকেও বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। সিঙ্গাপুর থেকে আগত চিকিৎসকদল এবং ভারতের বিখ্যাত চিকিৎসক দেবী শেঠীও বলেছেন তাকে বিশ্বমানের চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। আর বিএনপি বলেন এখানে বিশ্বমানের চিকিৎসা দেয়া সম্ভব না। আসলে বিএনপি খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে রাজনীতি করেন।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির ৫ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি নেত্রীকে সুস্থ দাবি করে তথ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেন, ওনারা একজন সুস্থ মানুষকে অসুস্থ বানিয়ে ফেলছে। ওনার (খালেদা জিয়া) যে পায়ে ব্যথা, সেটা নিয়ে তিনি দুইবার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন। পায়ের এই সমস্যা নিয়ে তিনি বিরোধী দলীয় নেত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন। এটা তো তার কোনো নতুন শারীরিক সমস্যা নয়, এটা পুরাতন সমস্যা। তারা বড় করে দেখিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে।

তথ্যমন্ত্রী এসময় অভিযোগ করেন, বাংলাদেশের আলেম সমাজকে নিয়ে বিএনপি-জামায়াত কেবল রাজনীতিই করেছে। আলেম সমাজের মাথায় কাঁঠাল ভেঙেই বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় গেছে। তবে আলেম সমাজের উপকারে কোনো কাজ করেনি তারা।

হাছান মাহমুদ বলেন, আমাদের ধর্মীয় অনুভূতিকে কাজে লাগিয়ে, ধর্মের কথা বলে বিএনপি-জামায়াত মানুষের ভোট নিয়েছে। কিন্তু আলেম সমাজের জন্য তারা কোনো কাজ করেনি। তবে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসলামের জন্য, আলেম সমাজের জন্য অনেক কাজ করেছেন। বাংলাদেশের আলেমদের শতবর্ষের দাবি ছিল একটি ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা। তবে অনেকেই ক্ষমতাও এলেও আরবি বিশ্ববিদ্যালয় হয়নি। শত বর্ষের দাবি পূরণে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেছেন শেখ হাসিনা।

ইসলামকে যারা রাজনৈতিক স্বার্থে খেদমত করেন তারা ইসলামের খেদমতগার নন, এমন মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, কওমি মাদরাসার স্বীকৃতি অনেক পুরনো দাবি এবং এই দাবির কথা বলে মাওলানা মান্নান সাহেব দুইবার মন্ত্রী হয়েছিলেন। তবে দাবি পূরণ হয়নি। বিএনপি-জামায়াত ইসলামের কথা বলে ক্ষমতায় গেলেও কওমি মাদরাসার স্বীকৃতি দেয়নি। শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগ সরকার কওমি মাদরাসার স্বীকৃতি দিয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, কওমি মাদরাসার সনদ এখন বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স ডিগ্রির সমমানের স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। শুধু স্বীকৃতি দেয়া হয়নি, এই নিয়ে সংসদে আইন পাস করা হয়েছে।

মাওলানা ইসমাইল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে দলটির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

দৈনিক যশোর
দৈনিক যশোর
এই বিভাগের আরো খবর