মঙ্গলবার   ২৩ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ৭ ১৪২৬   ২০ জ্বিলকদ ১৪৪০

১১৪

এসিআই লিমিটেডের ডিপোতে ডাকাতি, ১১ লাখ টাকা লুট

প্রকাশিত: ২৯ জানুয়ারি ২০১৯  

যশোরের অভয়নগরে এসিআই লিমিটেডের নওয়াপাড়া ডিপোতে দুর্ধষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ভল্ট ভেঙ্গে ১১ লাখ ১৩ হাজার ২৮৭ টাকা লুটের অভিযোগ করেছে ডিপো ম্যানেজার। রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সোমবার সকালে অভয়নগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

কর্তব্যরত দুই নৈশ প্রহরী জাকির হোসেন ও রাসেল শেখ জানান, রাত আনুমানিক ৩টার দিকে ৭/৮ জন মুখোশধারী রামদা ও লোহার রড নিয়ে ডিপোর দ্বিতীয় তলায় প্রবেশ করে এবং তাদের দুইজনকে মারধর করে দড়ি দিয়ে বেধে সিঁড়ির পাশে আটকে রাখে। প্রায় ৩০ মিনিট পর ডাকাতরা চলে গেলে তারা একে-অপরের সহযোগিতায় দড়ি দিয়ে বাধা হাত খুলে ফেলে। সাথে সাথে পাশের ভবনে থাকা কম্পানির সুপারভাইজর মোস্তফাকে খবর দেয়।

এ ব্যাপারে সুপারভাইজর মোস্তফা বলেন, খবর পেয়ে তিনি ডিপোর নিচতলার প্রধান গেটের তালা খুলে দেখতে পান জেনারেটর রুমের দেয়ালের উপরের অংশ ভাঙ্গা। দুই নৈশ প্রহরী ভয়ে কাপছেন। দ্বিতীয় তলায় গিয়ে দেখেন ম্যানেজার ও ভল্ট রাখা রুমের দরজার তালা ভাঙ্গা। এ সময় তিনি ডিপোর ম্যানেজারকে মোবাইল ফোনে খবর দেন।

ডিপোর ম্যানেজার এস এম রেজাউল করিম জানান, খবর পেয়ে ভোর রাতেই তিনি ডিপোতে চলে আসেন। নিজ অফিসে ঢুকে দেখেন ডিজিটাল ভল্টটি ভাঙ্গা ও রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে সংগ্রহ করা ১১ লাখ ১৩ হাজার ২৮৭ টাকা ভল্টের মধ্যে নেই।

তিনি বলেন, ডাকাতরা কোনো মালামাল না নিলেও কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নষ্ট করেছে এবং নগদ টাকা লুট করে নিয়ে গেছে। সকালে পুলিশ ও নওয়াপাড়া পৌরসভার মেয়র সুশান্ত কুমার দাস শান্ত ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসেছিলেন।


নওয়াপাড়া পৌরসভার মেয়র সুশান্ত কুমার দাস শান্ত বলেন, খবর পেয়ে সকালে ডিপোতে গিয়েছিলাম। অভয়নগর থানা পুলিশকে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে অভয়নগর থানার অফিসার্স ইনচার্জ আলমগীর হোসেন বলেন, অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

দৈনিক যশোর
দৈনিক যশোর
এই বিভাগের আরো খবর